You are here: Home / অনুভূতি / বর্ষা বিলাস

বর্ষা বিলাস

Salah Uddin Mahmud (Barsha Bilas):: সালাহ উদ্দিন মাহমুদ ::

বর্ষাকে অনেক ভালোবাসি তুমি আর আমি। বর্ষা এলেই প্রেমাতুর হয়ে উঠি দুজন। তোমার প্রেমকাতর মনের হাহাকার পৌঁছে যায় আমার মনেও। বিগত বর্ষার খণ্ড খণ্ড স্মৃতি তোমাকে-আমাকে তাড়া করে এখনো। তোমার-আমার বর্ষাপ্রীতি আজও মহাকবি কালিদাসের মেঘদূতকে স্মরণ করিয়ে দেয়। কবির কবিতায়, শিল্পীর গানে, সিনেমার দৃশ্যে তোমার সরব উপস্থিতি টের পাই রোজ।
তুমি বলেছিলে, কী করে একখণ্ড মেঘ কবির কল্পনায় হয়ে উঠেছিলো বিরহীর বার্তাবাহক প্রাণবন্ত-জীবন্ত দূত প্রেমিক যক্ষ তার প্রিয়তমার ভালো-মন্দ খবরা-খবর নিতে মেঘকে দূত হিসেবে পাঠিয়েছিলেন। কিন্তু আমিতো যক্ষ নই। আমি কাউকে পাঠাতে পারি না তোমার কাছে। আমি কেবল তোমার বিগত স্মৃতি হাতরে এখনো বর্ষার কোমল স্পর্শ পাই। তোমার বর্ষাস্নাত ভালোবাসার ছোঁয়া পাই। চোখ বুজে তোমার শরীরিক স্পর্শ পাই।
এখনো মনে পড়ে, সেদিন আকাশে নূতন মেঘ মেঘের কী অপূর্ব সাজ আর বাহারী আওয়াজ। তোমার দেখা পেতে কাতর বিরহী আমি কতবার ছুটে গেছি তোমার কাছে। বিরহীজনের মনোহভিলাষ বাষ্পীভূত হয়ে ঘণীভূত হয়েছে মেঘদলে। ঝড়-জল উপেক্ষা করে ছুঁয়েছি তোমার উষ্ণতা। সেসব কেবলি অতীত। জানালার পাশে বসে বৃষ্টিকে ছোঁয়ার গল্প তুমি-আমিই রচনা করেছিলাম। বৃষ্টির ছন্দে মেতে উঠেছিলাম অপার্থিব এক মহানন্দে। একই ছাতার নিচে হেঁটে গেছি দুজন। বৃষ্টির শীতল ধারাও শরীরের উত্তাপ বাড়িয়েছে ক্রমশ।
আজও তোমার থেকে সুদূরে অবস্থান করে তোমার একান্ত সান্নিধ্য বঞ্চিত জীবনের আবেগময় কাতর অনুভব প্রকাশ করি কবিতায়, গল্পে কিংবা স্মৃতিকথায়। এখনোতো বর্ষা আসে। আগের মতই ভাসায় সব। ভেসে যায় মাঠ-ঘাট, খাল-বিল, গাঁয়ের মেঠোপথ। ভাসায় তোমার-আমার হৃদয়াবেগ। ভাসিয়ে নেয় ব্যর্থ জীবনের ক্লেদ। ক্লেদাক্ত বুকে এখনো চোখ বুজে অনুভব করি তোমার পরশ।
সেইবার বর্ষায় বৃষ্টিস্নাত এক শীতল বিকেলে তুমি-আমি ঘুরেছিলাম একটি গ্রাম। নৌকায় বসে পা দুলিয়ে আঁচল ভিজিয়ে কাপিয়েছিলে নদীর বুক। উচ্ছ্বাসের সুর লহরি মাতিয়েছিলো সারাটা বিল।কখনো কখনো তোমার হাতের ছেটানো পানি ভিজিযেছে আমাকে। আমি শিহরিত হয়েছি। পুলকিত হয়েছি শরীরে ও মনে। পিচ্ছিল পথে হাঁটতে গিয়ে কাদায় লুটোপুটি কিংবা তোমার অবলম্বন আমি-আমার অবলম্বন তুমি।
তোমার পরশেই আমি হয়ে উঠেছিলাম বর্ষা বিলাসী। বর্ষা বিলাসী হয়েছি বলেই মনে হয় আজও এতো বৃষ্টি ঝরে। গলে পড়ে অনুভূতির বরফ সময়, থেমে যায় হতাশার উত্তাপ। এখনো বৃষ্টি আমায় শীতল করে, বন্দি করে চার দেয়ালে, জাপটে ধরে বাহু বন্ধনে।
বর্ষা বিলাসী হয়েছি বলেই হয়তো আজ এতো অশ্রু ঝরে। বর্ষার বিচ্ছিন্ন সময় কেটে গেছে ঢের। ভেঙে পড়ে বেদনার পাহাড়, থেমে যায় সব কোলাহল। এখনো বৃষ্টি আমায় নিঃস্ব করে। ঝরো ঝরা মুখর গানে ভাসিয়ে নেয় বন-বাদাড়ে।
যক্ষের মতো আমিও বলবো তোমায়, ওগো বর্ষা বিলাসী, আমাকে এক ফোটা জল দাও। আমি কিঞ্চিৎ ভিজবো বলে পঞ্চবসন্ত অপেক্ষায় আছি। বহুদিনের তপ্ত হৃদয় নিয়ে, দুঃখের দহনে পোড়া হৃদয় নিয়ে এখনো অপেক্ষমান তোমার জলের ছোঁয়া পাবো বলে। তোমার দেয়া এক ফোটা জলে যদি কাটে মনের খরা।
ওগো আমার বর্ষা বিলাসী, দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর হয়তো পাবো তোমার দেখা। সেদিনও তুমিইতো আমার বৃষ্টির ধারা। কোনো এক বর্ষাকালে তুমি সারারাত ঝরে ঝরে ক্লান্তি শেষে আমাকে একটু দিও ভোরের শিশির। আমি সিক্ত হবো। তোমার স্পর্শে হবো সবুজ ঘাস, রাত জেগে হবে। তোমার-আমার বর্ষা বিলাস।

Salah Uddin Mahmud (Photo)অনুভূতি লেখক: সালাহ উদ্দিন মাহমুদ
সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক কর্মী ও লেখক।
রচনা: আগস্ট ২০১৫, বিজয় নগর, ঢাকা, প্রকাশ: ২৬ জুলাই ২০১৬
মোবাইল: ০১৭২৫৪৩০৭৬৩


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top