শীঘ্রই পরিপূর্ণরূপে আসছে অনুভূতি’র এই ওয়েবসাইটি। আগামীতে লেখকরা সরাসরি নিজেদের লেখা দিতে পারবেন। এখন লেখা প্রকাশের জন্য ইমেইল করুন: bisleson@yahoo.com
বংশ পরম্পরায় শৈশব

বংশ পরম্পরায় শৈশব

কয়েকদিন ধরে দুটি বিড়ালের বাচ্চা ঘরের মধ্যে আসে। একটি কুচকুচে কালো। অন্যটি সাদা, তবে দুএক জায়গায় কালো দাগও আছে মনে হলো। মাঝে মধ্যে মা বিড়ালটিকেও দেখি। আমাকে দেখামাত্রই দৌড়ে ঘর ছাড়ে বিড়ালগুলো। স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে জেলা ... Read More »

আমার পৃথিবী

আমার পৃথিবী

আমার মা প্রতিদিন সূর্যোদয়ের সাথে সাথে ঘুম থেকে ওঠেন। আমি তখন প্রতিদিনের মতো ঘুমিয়ে থাকি। মা আমাদের ঘরের পাশে তার নিজ হাতে রোপন করা টগর ফুলের গাছ থেকে পূজা-অর্চনা করার জন্য ফুল তোলেন। আর যখন আমাদের ঘরে নিত্যদিনের পূজা ছাড়া ... Read More »

শূন্য বারান্দায় পড়ে থাকা উড়ো চিঠি

শূন্য বারান্দায় পড়ে থাকা উড়ো চিঠি

জানো বাবা, ক’দিন ধরেই আম্মা আমাকে প্রচন্ড চাপের মধ্যে রেখেছে। এটার কোন মানি হয়, এখনো তো বেশ বাকি। ঈদের একদিন আগেই তো প্রয়োজনী সব জিনিসপত্র কেনা-কাটা করলে হয়। আম্মার দাবী, সব প্রস্তুতি আগে থেOকেই নিতে হবে। কিন্তু কোথায়, গতবার তো ... Read More »

যখন পৃথিবীকে দেখি ওই অসীম মহাশূন্য থেকে

যখন পৃথিবীকে দেখি ওই অসীম মহাশূন্য থেকে

সন্ধ্যা আকাশে সূর্যের শেষ আভাটুকু নিঃশেষ হওয়ার পর পরই আমার কল্পনার মন ওই দূর দিগন্তের এক নক্ষত্র থেকে অন্য এক নক্ষত্রে ছুটে যায়। কল্পনায় অসীম মহাকাশের শেষ খুঁজে ফিরি কিন্তু আমার চলা শেষ হয় না। কী অসীম মহাশূন্যে আমার অবস্থান, ... Read More »

ফেরা

ফেরা

ছেলেটির অপরাধ হল সে একটি মোটরসাইকেল কিনেছিল। খুব আহামরি কিছু নয়। কোন রকম চলে এমনটি। একদিন এই মোটরসাইকেলটি কেড়ে নেবার জন্য তাকে চার যুবক খুব মেরেছিল। সে চাবিটি দিয়েও দিতে চেয়েছিল কিন্তু পকেট হাতড়ে বুঝতে পারে মার খেয়ে পড়ে যাবার ... Read More »

টুনটুনি আমার প্রথম পাপ, হয়তো বা শেষ প্রায়শ্চিত্ত

টুনটুনি আমার প্রথম পাপ, হয়তো বা শেষ প্রায়শ্চিত্ত

আমিরুজ্জামান আমির বাবু: আমি তখন দ্বিতীয় বা তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ি। মাটির গুলি বানিয়ে রোদে শুকিয়ে চুলার আগুনে পুড়ে বানাতাম গুলতিবাসের পাখি শিকারের অস্ত্র। ওই সময় স্কুল বন্ধ থাকতো রবিবার। একদিন সকাল ৯টা থেকে ১০টার মধ্যে গুলতিবাস দিয়ে মেরে ফেললাম একটি টুনটুনি ... Read More »

সব দিন যদি বিজয় দিবস হতো!

সব দিন যদি বিজয় দিবস হতো!

তাশরিক সঞ্চয়: সেই রাতে ঘুম হতো না। কখন ভোর হবে! কখন হাড় কাঁপানো শীতে ঘর থেকে বেরুবো। বার বার হাতে নেড়ে দেখতাম পরিপাটি করে গুছিয়ে রাখা জামা-জুতো আর সকালের সাজ। ঠিক যেন নির্মলেন্দুর কবিতায় … অমর কবিতা শুনতে অধীর আগ্রহে ... Read More »

আলো আসবে না এখানে

আলো আসবে না এখানে

বসতবাড়ির জ্যামে দেখা যায় না ঢাকার আকাশ। এ তো পুরোনো গল্প এক। শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে বাসায় ফিরছি। শীতের ছোট্ট দুপুরের মিষ্টিরোদ আমাকে টেনে ধরলো। রাস্তার পাশে দাঁড়ালাম চা হাতে। চোখে পড়লো উঁচু দালানের বেলকোনিতে ভদ্রলোকের সানবাথের সাথে পেপার পড়ার ... Read More »

শেষ বিকেলের আকাশে মেঘ

শেষ বিকেলের আকাশে মেঘ

কত শত টুকরো টুকরো গল্প ঝুলে আছে আমার বত্রিশ বছরের বয়সঘড়িতে। আর যেহেতু বর্তমান আমাকে কিছুতেই স্বস্তি দেয় না- তাই ফিরে ফিরে আমি সেইসব ঘটনার কাছেই চলে যাই, যা আমাকে এক নিবিড় আনন্দ দেয়। স্বস্তি দেয়। গৃহপালিত প্রাণিটি যেমন ভরপেট ... Read More »

আপনজনের লাশ দেখে চোখে একটুও পানি আসে নি!

আপনজনের লাশ দেখে চোখে একটুও পানি আসে নি!

যোগেশ চন্দ্র ঘোষ: ১৯৭১ সালে আমার বয়স ৩৫ বছর। তখন আমি পোষ্টমাষ্টারের চাকরি করতাম। দেশে যুদ্ধ লেগেছে সে কথা জানতাম। পাকবাহিনী হিন্দুদের প্রতি বেশি অত্যাচার করত। আমাদের এলাকার সবাই ছিল হিন্দুবসতি। আমরা আতঙ্কিত ছিলাম যে, পাক বাহিনী আমাদের আক্রমণ করতে ... Read More »

শীঘ্রই পরিপূর্ণরূপে আসছে অনুভূতি’র এই ওয়েবসাইটি। আগামীতে লেখকরা সরাসরি নিজেদের লেখা দিতে পারবেন। এখন লেখা প্রকাশের জন্য ইমেইল করুন: bisleson@yahoo.com
Scroll To Top